সাবেক মেয়র বদর উদ্দিন আহমদ কামরান আর নেই                 লকডাউনের নির্দেশনা পায়নি প্রশাসন : রেড জোন সিলেট                 বীর মুক্তিযোদ্ধার মৃত্যুতে জেলা ইউনিট কমান্ড ও স্বেচ্ছাসেবক কমিটির শোক                 আজ থেকে খুলছে ১৮ মন্ত্রণালয়ের অফিস : কাজ চলবে সীমিত                 মহানগর যুবলীগের সম্পাদক মুশফিক জায়গীরদারের ইফতার বিতরণ                 ইনজেকশন পুশ করার ৩ ঘন্টার মধ্যে সুস্থ করোনা আক্রান্ত !                 খাদ্য সামগ্রী নিয়ে অসহায়দের পাশে বিএনপি নেতা ছাত্তার                
২২শে শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ ৬ই আগস্ট, ২০২০ ইং বৃহস্পতিবার রাত ১০:২১ বর্ষাকাল

 

 

 

আফগানিস্তানে তীব্র শৈত্যপ্রবাহে ১৭ জনের মৃত্যু

প্রকাশিত হয়েছে : ২:৩৬:২১,অপরাহ্ন ১৩ জানুয়ারি ২০২০ |
এ সংবাদটি পড়া হয়েছে 90 বার
আফগানিস্তানে তীব্র শৈত্যপ্রবাহে ১৭ জনের মৃত্যু

আফগানিস্তানজুড়ে বয়ে যাওয়া তীব্র শৈত্যপ্রবাহের মধ্যে দেশটির কয়েকটি অংশে ভারি তুষারপাত ও প্রবল বৃষ্টি হচ্ছে। চরম এ আবহাওয়ার মধ্যে শনিবার অন্তত ১৭ জনের মৃত্যু হয়েছে বলে দেশটির সরকারি কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।

তীব্র শীত আফগানিস্তানের জন্য নতুন কোনো ঘটনা নয়, কিন্তু এ বছর আবহাওয়া আরও চরম আকার ধারণ করেছে বলে দেশটির আবহাওয়া বিভাগ বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে জানিয়েছে।

মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে জানিয়েছেন কর্মকর্তারা।

আফগানিস্তানের প্রাকৃতিক দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা টিমের মুখপাত্র তামিম আজিমি রয়টার্সকে বলেন, এই দেশে এ রকম চরম শৈত্যপ্রবাহ আশা করিনি আমরা। ভারি তুষারপাতে হতাহতের ঘটনা ঘটছে বলে খবর পাচ্ছি, কিন্তু নির্দিষ্টভাবে মোট কতজন হতাহত হয়েছে এই মূহুর্তে সে তথ্য আমাদের কাছে নেই।

দেশটির কোনো কোনো অংশে তাপমাত্রা মাইনাস ১২ সেলসিয়াস পর্যন্ত নেমে গেছে। শনিবারের মৃতদের নিয়ে চলতি বছর তীব্র ঠাণ্ডায় এ পর্যন্ত অন্তত ২৪ জনের মৃত্যু হয়েছে।

ভারি তুষারপাতে নতুন বছর শুরু হওয়ার পর থেকে কাবুল-কান্দাহার মহাসড়ক, সালাঙ্গ টানেলসহ বেশ কয়েকটি প্রধান মহাসড়ক বন্ধ হয়ে রয়েছে।

দেশটির পশ্চিমাঞ্চলীয় প্রদেশ হেরাতে শনিবার ভারি তুষারপাতে দুটি বাড়ির ছাদ ধসে অন্তত আট জন নিহত হন। নিহতদের মধ্যে নারী ও শিশু রয়েছে বলে প্রাদেশিক গভর্নরের মুখপাত্র জানিয়েছেন।

দেশটির অপর কয়েকটি অংশে প্রবল বৃষ্টিপাত হয়েছে বলে কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।

আবহাওয়া বিভাগের পূর্বাভাস শাখার প্রধান মোহাম্মদ নাসিম মুরাদি বলেন, আসছে সপ্তাহগুলোতে আরও কয়েকটি শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যেতে পারে।

যুদ্ধের কারণে আফগানিস্তানে লাখ লাখ লোক বাস্তুচ্যুত হয়েছে। দেশটির অন্তত ৯০ লাখ লোকের খাবার ও আশ্রয়সহ জরুরি ত্রাণ সাহায্য দরকার বলে জানিয়েছে জাতিসংঘ।

আফগানিস্তানের যুদ্ধরত গোষ্ঠীগুলো ঐতিহাসিকভাবেই শীতকালে চরম আবহাওয়ার সময় সহিংসতা থেকে বিরত থাকে।

সংবাদটি ভাল লাগলে শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  



AD

 

 

 

 

 

 

 

devolop ওয়েব হোম বিডি Mobile: 01711-370851