সাবেক মেয়র বদর উদ্দিন আহমদ কামরান আর নেই                 লকডাউনের নির্দেশনা পায়নি প্রশাসন : রেড জোন সিলেট                 বীর মুক্তিযোদ্ধার মৃত্যুতে জেলা ইউনিট কমান্ড ও স্বেচ্ছাসেবক কমিটির শোক                 আজ থেকে খুলছে ১৮ মন্ত্রণালয়ের অফিস : কাজ চলবে সীমিত                 মহানগর যুবলীগের সম্পাদক মুশফিক জায়গীরদারের ইফতার বিতরণ                 ইনজেকশন পুশ করার ৩ ঘন্টার মধ্যে সুস্থ করোনা আক্রান্ত !                 খাদ্য সামগ্রী নিয়ে অসহায়দের পাশে বিএনপি নেতা ছাত্তার                
১১ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ ২৬শে নভেম্বর, ২০২০ ইং বৃহস্পতিবার সকাল ৭:৪০ হেমন্তকাল

 

 

 

এসএসসি পর্যন্ত বিভাগ না রাখার অভিমত প্রধানমন্ত্রীর

প্রকাশিত হয়েছে : ৬:৩০:৪৭,অপরাহ্ন ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০ |
এ সংবাদটি পড়া হয়েছে 104 বার
এসএসসি পর্যন্ত বিভাগ না রাখার অভিমত প্রধানমন্ত্রীর

বিজ্ঞান শিক্ষার ওপর গুরুত্বারোপ করে শিক্ষা ব্যবস্থায় নবম শ্রেণি থেকে প্রচলিত বিষয়ভিত্তিক বিভাজন তুলে দেওয়ার অভিমত দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, বিজ্ঞান, কলা ও বাণিজ্য- এই বিভাজন এসএসসি পর্যন্ত না থাকাই ভালো। প্রয়োজনে এসএসসির পর বিভাজন হতে পারে।

বুধবার সকালে নিজ কার্যালয়ের (পিএমও) শাপলা হলে বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের মেধাবী শিক্ষার্থীদের মাঝে ‘প্রধানমন্ত্রী স্বর্ণপদক-২০১৮’ বিতরণকালে প্রধান অতিথির ভাষণে তিনি এ কথা বলেন। খবর বাসসের।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, (শিক্ষার্থীরা) সবই পড়ুক; তারপর যেখানে সে মেধা বিকাশের সুযোগ পাবে সেটা করে নেবে। তাহলে অন্তত, তাদের (শিক্ষার্থীদের) মেধা বিকাশের একটা সুযোগ হয়।

চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের প্রসঙ্গ টেনে এজন্য শিক্ষার্থীদের দক্ষ জনশক্তি হিসেবে গড়ে তোলার ওপর গুরুত্বারোপ করেছেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, এখন সব সাবজেক্টই বিজ্ঞানভিত্তিক। সেটা ধীরে ধীরে চলেই এসেছে। বিজ্ঞানের বাইরে কিছু নেই।

এদিন বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি) আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন অনুষদের সর্বোচ্চ নম্বর বা সিজিপিএ প্রাপ্তদের হাতে ‘প্রধানমন্ত্রী স্বর্ণ পদক-২০১৮’ তুলে দেন তিনি। এবার ৩৬টি বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৭২ জন মেধাবী শিক্ষার্থী এ পদক পেয়েছেন।

অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, ‘আমাদের (দেশে) ক্লাস নাইন থেকে কে কোন সাবজেক্টে যাবে সেটা ভাগ করে দেওয়া হয়। আমার মনে হয়, এই ভাগটা থাকার কোনো দরকারই নাই। কারণ, এসএসসি পরীক্ষা পর্যন্ত সব সাবজেক্টই তারা পড়তে পারে।’ এ দিন শিক্ষার মানোন্নয়নে ইউজিসিকে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর ওপর নজরদারি বাড়ানোরও নির্দেশ দেন প্রধানমন্ত্রী।

ইউজিসি চেয়ারম্যান অধ্যাপক কাজী শহিদুল্লাহর সভাপতিত্বে এ অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তৃতা করেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দিপু মনি। অনুষ্ঠানে আরও বক্তৃতা রাখেন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক এবং উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব মো. মাহবুব হোসেন, বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিপার্টমেন্ট অব ফিশারিজ টেকনোলজি’র শিক্ষার্থী মো. মোবারক হোসেন এবং জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ম্যানেজমেন্ট স্টাডিজের শারমিন সুলতানা।

শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী, মুখ্য সচিব ড. আহমদ কায়কাউস এবং ইউজিসির সদস্য অধ্যাপক ড. মো. সাজ্জাদ হোসেন মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদটি ভাল লাগলে শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  



AD

 

 

 

 

 

 

 

devolop ওয়েব হোম বিডি Mobile: 01711-370851