সাবেক মেয়র বদর উদ্দিন আহমদ কামরান আর নেই                 লকডাউনের নির্দেশনা পায়নি প্রশাসন : রেড জোন সিলেট                 বীর মুক্তিযোদ্ধার মৃত্যুতে জেলা ইউনিট কমান্ড ও স্বেচ্ছাসেবক কমিটির শোক                 আজ থেকে খুলছে ১৮ মন্ত্রণালয়ের অফিস : কাজ চলবে সীমিত                 মহানগর যুবলীগের সম্পাদক মুশফিক জায়গীরদারের ইফতার বিতরণ                 ইনজেকশন পুশ করার ৩ ঘন্টার মধ্যে সুস্থ করোনা আক্রান্ত !                 খাদ্য সামগ্রী নিয়ে অসহায়দের পাশে বিএনপি নেতা ছাত্তার                
২০শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ ৫ই ডিসেম্বর, ২০২০ ইং শনিবার বিকাল ৪:৫৯ হেমন্তকাল

 

 

 

সিলেটে দুপক্ষের সংঘর্ষ : অস্ত্রসহ ২ ছাত্রলীগ নেতা আটক

প্রকাশিত হয়েছে : ৯:১৩:০৬,অপরাহ্ন ১৭ এপ্রিল ২০২০ |
এ সংবাদটি পড়া হয়েছে 181 বার
সিলেটে দুপক্ষের সংঘর্ষ  : অস্ত্রসহ ২ ছাত্রলীগ নেতা আটক

ওপেননিউজ ডেস্ক ::

সিলেটে দুই পক্ষের সংঘর্ষের ঘটনায় কেহ হতাহত না হলেও ঘটনাস্থল থেকে অস্ত্রসহ দুই ছাত্রলীগ নেতাকে আটক করেছে পুলিশ। আটককৃতরা হল, সিলেট জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ সম্পাদক অদিত ইসলাম সালমান ও ছাত্রলীগ নেতা রেদওয়ান।

শুক্রবার (১৭ এপ্রিল) বিকেল ৪টার দিকে সিলেট নগরীর মিরবক্সটুলাস্থ মাউন্ট এডোরা হাসপাতালে করোনা রোগীদের চিকিৎসা করা নিয়ে দুই পক্ষের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

সংঘর্ষের বিষয়ে জিয়াউল ইসলাম নামের স্থানীয় এক যুবক বলেন, ‘আমি দুপুরে খেতে বসি, তখন অপরিচিত এক নাম্বার থেকে আমার মোবাইলে ফোন আসে। ফোনে অদিত নামে একজন আমাকে হুমকি দিয়ে বলে আমি ১০ টা মামলার আসামি দরকার হলে আরও একটা বাড়বে। এরপর সে দা ও পিস্তল নিয়ে আমারা বাসায় গেইটে দাড়িয়ে ছিল। এরপর এলাকাবাসী পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ এসে তাকে আটক করে। তার সাথে আগে থেকে আমার কোনো পরিচয় নেই জানিয়ে তিনি বলেন, কেন আমার মোবাইলে ফোন দিল তাও আমি জানি না।’
এসময় ঘটনাস্থলে থাকা এক বৃদ্ধ বলেন, ‘সালমানে আরো বহু মানুষের বাসায় হামলা করেছে। আপনারা খোঁজ-খবর নেন। সে থাকে বটেশ্বর আর আওয়ামী লীগের নাম বিক্রি করে খায়।’ আর যে বাসায় প্রথম হামলা হয়েছে সেই বাসার একজন বলেন, আমি বাসায় ছিলাম, তখন আমার ভাতিজাকে ফোনে হুমকি দেয়। এরপরই আমার বাসায় এসে দা দিয়ে হামলা করে। এসময় পিস্তল বের করলে আমি এগিয়ে গিয়ে তাকে ফিরিয়ে দেই। তবে আটক সিলেট জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সম্পাদক অদিত ইসলাম সালমান বলেন, ‘আমাদের এলাকার কয়েকজন বলেছেন মাউন্ট এডোরা হাসপাতালে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী রাখা হবে না। এ নিয়ে তারা সিলেটে সিভিল সার্জন, জেলা প্রশাসক ও মেয়র বরাবর একটি স্মারকলিপিও দিয়েছেন। এনিয়ে আমি দ্বিমত পোষণ করে ফেসবুকে পোস্ট করি।’ তিনি আরও বলেন, ‘দেশের এই ক্রাইসিস মোমেন্টে এখানে করোনা রোগীদের চিকিৎসা দিলে স্থানীয় আওয়ামী লীগ, ছাত্রলীগ, যুবলীগ ও এলাকাবাসীর কোন সমস্যা নেই। এতে এলাকার কিছু মানুষ ক্ষিপ্ত হয়ে আমার উপর হামলা করেন। তারা প্রথমে আমার গাড়ি আটকিয়ে আমার মাথায় আঘাত করেন। এখানে আমার পরিচিত কয়েকজন ছিল। কিন্তু পুলিশ আসার পর এলাকাবাসী পিস্তল ও একটি দা এনে তাদের হাতে দেয়।

কোতোয়ালী থানার ওসি মো. সেলিম মিয়া ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ‘মাউন্ট এডোরা হাসপাতালে করোনা রোগীদের চিকিৎসা দেয়ার নিয়ে ফেসবুকে বাগবিতন্ডায় জড়ায় কিছু যুবক। এ বিবাদের জেরে খাদিমপাড়া থেকে দুই যুবক নগরীর নয়াসড়ক এলাকায় আসেন। যাদের সাথে ফেসবুকে বিবাদ হয়েছে, তাদেরকে খোঁজতে থাকেন। পরে স্থানীয়রা তাদেরকে আটক করে গণধোলাই দেয়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে তাদেরকে আটক করে ওসমানী হাসপাতালে নিয়ে গেছে।’
প্রসঙ্গত, ১৫ এপ্রিল (বুধবার) সিলেট সিটি কর্পোরেশনের অন্তর্গত মিরবক্সটুলায় অবস্থিত মাউন্ট এডোরা হাসপাতালে করোনা রোগী না রাখার জন্য সিভিল সার্জন বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করেন এলাকাবাসীর পক্ষে নয়াসড়ক জামে মসজিদের মোতাওয়াল্লী আব্দুল মালিক রাজা, আজাদী সমাজ কল্যাণ সংস্থার সভাপতি মো. আব্দুল কাহির ও ব্যবসায়ী মিলাদ আহমদ। এটি পৃথক পৃথকভাবে সিটি মেয়র ও হাসপাতাল পরিচালক বরাবরেও ৮৬ জন এলাকাবাসী স্বাক্ষরিত এই স্মারকলিপি প্রদান করেন তারা।

সংবাদটি ভাল লাগলে শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  



AD

 

 

 

 

 

 

 

devolop ওয়েব হোম বিডি Mobile: 01711-370851