নগরীতে ওয়ারেন্টভুক্ত আসামি গ্রেপ্তার                 ৩৪ বছর বয়সে ফিনল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী সানা মেরিন                 রোমান সানার আরেকটি সোনা জয়                 চলে গেলেন অধ্যাপক অজয় রায়                 ভারতে অনুপ্রবেশকালে নওগাঁয় আটক ৩                 পাঁচ বিশিষ্ট ব্যক্তিকে ‘বেগম রোকেয়া পদক’ দিলেন প্রধানমন্ত্রী                 মৌলভীবাজারে পৃথক অভিযানে দুই পলাতক আসামি গ্রেপ্তার                
২৫শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ ১০ই ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং মঙ্গলবার সকাল ১১:৪৪ হেমন্তকাল

 

 

 

সড়ক আইন প্রয়োগে বাড়াবাড়ি করা হবে না : সেতুমন্ত্রী

প্রকাশিত হয়েছে : 3:07:02,অপরাহ্ন 21 November 2019 |
এ সংবাদটি পড়া হয়েছে 6 বার
সড়ক আইন প্রয়োগে বাড়াবাড়ি করা হবে না : সেতুমন্ত্রী

নতুন সড়ক আইন প্রয়োগে অহেতুক বাড়াবাড়ি হবে না বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। এই আইন নিয়ে শ্রমিকদের ধর্মঘটও আর নেই বলে জানিয়েছেন তিনি।

বৃহস্পতিবার (২১ নভেম্বর) আওয়ামী লীগের জাতীয় সম্মেলন প্রস্তুতি উপলক্ষে সাংস্কৃতিক বিষয়ক উপ-কমিটির এক সভা শেষে সাংবাদিকদের এসব কথা জানান তিনি।

১ নভেম্বর নতুন সড়ক পরিবহন আইন কার্যকর করে সরকার। তবে নতুন আইনে মামলা ও শাস্তি দেয়ার কার্যক্রম মৌখিকভাবে দুই সপ্তাহ পিছিয়ে দেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী। গত বৃহস্পতিবার সেই সময়সীমা শেষ হয়েছে। রোববার সড়কমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের জানান, ওই দিন থেকেই আইন কার্যকর শুরু হয়েছে। এরপর থেকেই ঘোষিত-অঘোষিত পরিবহন ধর্মঘট ডাকতে শুরু করে পরিবহন সংগঠনগুলো।

বুধবার সারাদেশে পরিবহন ধর্মঘটে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয়েছে দেশবাসীর। বুধবার রাত ১টায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালের আশ্বাসে বাস-ট্রাক-কাভার্ডভ্যান মালিক শ্রমিকরা ধর্মঘট প্রত্যাহার করার ঘোষণা দেন।

এ বিষয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, পরিবহন ধর্মঘট আর নেই। আইন প্রয়োগে অহেতুক বাড়াবাড়ি হবে না। বাড়াবাড়ি না হলে সমস্যাও হবে না। সব কিছুই আলাপ-আলোচনার মধ্যে দিয়ে সমাধান হয়েছে। যানবাহন চলাচলে বিঘ্ন ঘটার এখন কোনো কারণ নেই।

তিনি বলেন, আইন প্রয়োগ করতে গিয়ে যদি কোনোকিছু অসঙ্গতি হয়, তাহলে সেটা আমরা পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে দেখব। পরিস্থিতি এখন আর অস্বাভাবিক হওয়ার কোনো কারণ নেই।

দ্রব্যমূল্য নিয়ে বিএনপির অভিযোগ প্রসঙ্গে এক প্রশ্নের উত্তরে ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপি রাজনীতিতে তাদের অবস্থান নেতিবাচক হওয়ার কারণে নাজুক অবস্থায় নিপতিত। তাই নেতা-কর্মীদেরকে চাঙা রাখার জন্য তাদের অনেক মিথ্যাচার করতে হয়। সরকারবিরোধী কথাবার্তা বলতে হয়।

‘বলার জন্যই তারা বলছে, বিরোধিতার জন্যই বিরোধিতা করছে। বেপরোয়া চালকের মতো বেপরোয়া রাজনীতি করে তারা দুর্ঘটনা ঘটাতে চাচ্ছে,’ যোগ করেন তিনি।

আওয়ামী লীগের জাতীয় সম্মেলন প্রসঙ্গে দলটির সাধারণ সম্পাদক বলেন, সম্মেলনে সাংস্কৃতিক আয়োজন বেশি সময়ের জন্য করা হবে না। সম্মেলনের চেয়ে মুজিববর্ষের আয়োজনকে বেশি গুরুত্ব দিচ্ছে আওয়ামী লীগ।

আওয়ামী লীগের সাংস্কৃতিক উপ-কমিটির চেয়ারম্যান আতাউর রহমানের সভাপতিত্বে সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন সদস্য সচিব ও আওয়ামী লীগের সাংস্কৃতিক সম্পাদক আসীম কুমার উকিল, চিত্রনায়ক আকবর হোসেন খাঁন পাঠান ফারুক, সাংস্কৃতিক উপ-কমিটির সদস্য ও প্রধানমন্ত্রীর উপ প্রেসসচিব আশরাফুল আলম খোকন, সাইফুল আজম বাশার, লিয়াকত আলী লাকী, আহকামুল্লাহ, মেহের আফরোজ শাওন, জয়দেব নন্দী প্রমুখ।

সংবাদটি ভাল লাগলে শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  



AD

 

 

 

 

 

 

 

devolop ওয়েব হোম বিডি Mobile: 01711-370851